সিএমপির ‘আমার গাড়ি নিরাপদ’ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে নগরীর ৮টি পয়েন্টে সিএনজি অটোরিকশা গাড়ির নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সোমবার (১৩ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় নগরীর জিইসি মোড়ে স্থাপিত বুথে নিবন্ধন কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করেন সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর।

নিবন্ধন পয়েন্টগুলো হচ্ছে- জিইসি মোড় ট্রাফিক পুলিশ বক্স, টাইগারপাস ট্রাফিক পুলিশ বক্স, নিউমার্কেট ট্রাফিক পুলিশ বক্স, বহদ্দারহাট ট্রাফিক পুলিশ বক্স, বাদামতলী ট্রাফিক পুলিশ বক্স, অলংকার ট্রাফিক পুলিশ বক্স, মইজ্জারটেক ট্রাফিক পুলিশ বক্স ও সিমেন্ট ক্রসিং ট্রাফিক পুলিশ বক্স।

নিবন্ধনকৃত গাড়ির ড্রাইভার ও মালিকদের হাতে শুভেচ্ছা উপহার সামগ্রী তুলে দিয়ে উপস্থিত জনসাধারণের মাঝে এ সংক্রান্তে জনসচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন তিনি।

সিএমপি কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর বলেন, নগরীতে চলাচলরত রেজিস্ট্রেশনকৃত প্রায় ১৩ হাজার সিএনজি অটোরিকশাকে এ কার্যক্রমের আওতায় আনার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সিএমপি। যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা ও নিরাপত্তা অনুভূতি ছড়িয়ে দেওয়া এ কার্যক্রমের মূল উদ্দেশ্য। বিভিন্ন সময় সাধারণ যাত্রীরা তাদের অনেক মুল্যবান সামগ্রী সিএনজি অটোরিকশাতে ফেলে আসেন। যাত্রীরা যদি নিউমেরিক আইডিটি (কিউআর) কোড স্ক্যান করে রাখেন পরবর্তীতে সহজেই সিএনজি চালিত অটোরিকশাকে খুঁজে পাওয়া সম্ভব।

ট্রাফিক বিভাগ সূত্র আরও জানায়, নিবন্ধনের তথ্য সিএমপি সার্ভারে জমা হওয়ার পর সার্ভার থেকে অটোমেটিক মালিক এবং ড্রাইভারের জন্য আলাদা আলাদা একটি ইউনিক আইডি (কিউআর) কোড এবং নিউমেরিক আইডি প্রস্তুত হবে। উক্ত আইডি (কিউআর) কোড সম্বলিত একটি প্রিন্টেড কপি প্রতিটি গাড়ির মালিক ও ড্রাইভারকে প্রদান করা হবে। উক্ত আইডি (কিউআর) কোড সম্বলিত প্রিন্ট কপিটি গাড়িতে সবসময় এমন স্থানে ঝুলিয়ে রাখতে হবে যাতে যাত্রীদের দৃষ্টিগোচর হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-পশ্চিম) তারেক আহমেদ, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-উত্তর) মো. জয়নুল আবেদীন, অতিরিক্ত উপ-পলিশ কমিশনার (জনসংযোগ) মো. শাহাদাৎ হোসেন রাসেল, সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক-উত্তর) মো. মমতাজ উদ্দিন, সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার (কোতোয়ালী জোন) মো. মুজাহিদুল ইসলাম, টিআই (প্রশাসন-উত্তর) মো. সেলিমুর রহমান ও টিআই (প্রবর্ত্তক) মঞ্জুর হোসাইনসহ সংশ্লিষ্ট ট্রাফিক পুলিশ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।