জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ফিলিপাইন এবং পেরু থেকে যেসব বিদেশি নাগরিক দেশটিতে ফিরছেন, তাদের কঠোর বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে। এসব দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত শুক্রবার (৩১ জুলাই) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, এ চারটি দেশ থেকে জাপানে প্রবেশ করতে হলে দেশটির স্থায়ী বাসিন্দা, দীর্ঘমেয়াদী ভিসাধারী এবং তাদের স্বামী-স্ত্রী বা সন্তানকে অবশ্যই কোভিড-১৯ নেগেটিভ সার্টিফিকেট এবং জাপানে যাওয়ার অনুমতিপত্র দেখাতে হবে।

আগামী শুক্রবার (৭ জুলাই) থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

এর আগে জাপানে যেতে এ ধরনের কোনো অনুমতিপত্র দেখানোর প্রয়োজন হতো না। আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে জাপানগামী সব বিদেশি অধিবাসীর ওপরই এ বিধিনিষেধ আরোপ করা হবে। তবে এ চারটি দেশের জন্য আরও আগেই এ বিধিনিষেধ আরোপ করা হলো।

করোনা ভাইরাস শনাক্তের জন্য পিসিআর (পলিমারেজ চেইন রিঅ্যাকশন) টেস্ট অবশ্যই জাপানের উদ্দেশে যাত্রার আগের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে করাতে হবে। আর জাপানে প্রবেশের অনুমতিপত্র জাপানের দূতাবাস থেকে সংগ্রহ করা যাবে। জাপানে প্রবেশের পর তাদের ১৪ দিন আইসোলেশনে থাকতে হবে এবং এ সময় তারা গণপরিবহন ব্যবহার করতে পারবেন না।

জাপান সরকারের তথ্য অনুযায়ী, ৩ এপ্রিল দেশটিতে করোনা ভাইরাস রুখতে ভ্রমণে বিধিনিষেধ জারি করার আগে প্রায় ২ লাখ বিদেশি নাগরিক দেশটি ছেড়ে গেছেন।

সূত্র: দ্য জাপান টাইমস

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।